বিশ্বের প্রথম লাভ হোটেল চালু হয় জাপানে, সেই জাপানেই যৌনতায় অনাগ্রহী তরুণরা!

0
840

জাপানি তরুণরা ক্রমেই স্বাভাবিক ‘মানবিক আগ্রহ’ যেমন: প্রেম বা যৌনতার প্রতি আগ্রহ হারাচ্ছে। এমনকি, এসব সম্পর্কের চেয়ে অ্যানিমেশন নিয়ে কাজ করা বা উপভোগ করা তাদের কাছে বেশি আগ্রহের!

সাম্প্রতিক একটি গবেষণায় জানা গেছে, কখনোই শারীরিক সম্পর্কে জড়াননি বা এখনও কোন সম্পর্ক নেই, এ রকম তরুণের সংখ্যা দিনে দিনে বাড়ছে। অথচ বিশ্বের প্রথম লাভ হোটেল চালু হয় জাপানেই।

দেশটির তরুণদের মধ্যে প্রেম বা যৌনতা বিষয়ে আগ্রহ কেমন তা জানতে বিবিসি সংবাদদাতা রুপার্ট উইংফিল্ড-হেইজ কথা বলেন বেশ কয়েক জন তরুণ-তরুণীর সঙ্গে।

তাদেরই একজন আনো মাতসুই; যিনি যৌনতাহীন জীবনে অভ্যস্ত হয়ে উঠেছেন। মাতসুই বলেন, ‘এসব বিষয়ে আমার ঠিক আত্মবিশ্বাস নেই।’

২৬ বছরের এই তরুণ আরও বলেন, ‘একবার একটি মেয়েকে আমি ডেটিংয়ের জন্য বলেছিলাম, সে না বলে দেয়। সেটাই আমাকে আহত করে।’ আর এরপর থেকে তিনি নারীদের এড়িয়ে চলতে শুরু করেন।

প্রত্যাখ্যাত হওয়ার ভয় তরুণদের নারী সম্পর্কে জড়ানো থেকে দূরে রাখতে জোরালো ভূমিকা রাখে বলে মনে করেন মাতসুই। তিনি বলেন, ‘আমার মতো অনেক পুরুষ রয়েছে, যারা নারীদের ব্যাপারে সংকোচ বোধ করেন। কারণ প্রত্যাখ্যাত হওয়ার চেয়ে বরং অন্য কিছুতে মনোযোগ দেয়াই ভালো।’

সাম্প্রতিক গবেষণা বলছে, ১৮ থেকে ৩৪ বছরের তরুণদের ৪৫ শতাংশ কখনোই কোন শারীরিক সম্পর্কে জড়াননি। অন্যদিকে, ৬৪ শতাংশ বলছে, তারা প্রেম জাতীয় কোন সম্পর্কে এখনও জড়াননি।

পক্ষান্তরে, এ বিষয়ে জাপানের মেয়েরা মনে করেন; সম্পর্ক গড়ে তোলার ব্যাপারে ছেলেদেরই এগিয়ে আসতে হয় যা মোটেও সহজ কাজ নয় বলে মানছেন তারা।

এ বিষয়ে ৪৫ বছরের নারী রোকুডেনাশিকো বলেন, ‘একটি সম্পর্ক গড়ে তোলার জন্য একটি ছেলেকে প্রথমে একটি মেয়েকে ডেটিংয়ে নিয়ে যাওয়ার প্রস্তাব দিতে হয়। এতসব ব্যাপার অনেক তরুণ করতে চায় না।’

তিনি অনেকের মতো মনে করেন, ছেলেরা বরং ইন্টারনেটে পর্নো দেখে যৌন তৃপ্তি নেয়।

এ সময় তার পাশে বসা দুজন তরুণী যারা তাদের ‘ছেলেবন্ধু’র সঙ্গে ‘ব্যক্তিগত’ সম্পর্কে যুক্ত; এমন তথ্য শুনে বেশ আশ্চর্য হন রোকুডেনাশিকো।

অন্যদিকে, ২৪ বছর বয়সী হিসাব কর্মকর্তা আনা মনে করেন, যৌনতার চেয়েও তার কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ ভালো খাবারদাবার আর ঘুম। তিনি বেশ স্পষ্ট করেই জানালেন, ‘যৌনতা এমন কিছু, যার আসলে আমার দরকার বা চাহিদা নেই।’ সূত্র: বিবিসি
জাপানি তরুণরা ক্রমেই স্বাভাবিক ‘মানবিক আগ্রহ’ যেমন: প্রেম বা যৌনতার প্রতি আগ্রহ হারাচ্ছে। এমনকি, এসব সম্পর্কের চেয়ে অ্যানিমেশন নিয়ে কাজ করা বা উপভোগ করা তাদের কাছে বেশি আগ্রহের! সাম্প্রতিক একটি গবেষণায় জানা গেছে, কখনোই শারীরিক সম্পর্কে জড়াননি বা এখনও কোন সম্পর্ক নেই, এ রকম তরুণের সংখ্যা দিনে দিনে বাড়ছে। অথচ বিশ্বের প্রথম লাভ হোটেল চালু হয় জাপানেই। দেশটির তরুণদের মধ্যে প্রেম বা যৌনতা বিষয়ে আগ্রহ কেমন তা জানতে বিবিসি সংবাদদাতা রুপার্ট উইংফিল্ড-হেইজ কথা বলেন বেশ কয়েক জন তরুণ-তরুণীর সঙ্গে। তাদেরই একজন আনো মাতসুই; যিনি যৌনতাহীন জীবনে অভ্যস্ত হয়ে উঠেছেন। মাতসুই বলেন, ‘এসব বিষয়ে আমার ঠিক আত্মবিশ্বাস নেই।’ ২৬ বছরের এই তরুণ আরও বলেন, ‘একবার একটি মেয়েকে আমি ডেটিংয়ের জন্য বলেছিলাম, সে না বলে দেয়। সেটাই আমাকে আহত করে।’ আর এরপর থেকে তিনি নারীদের এড়িয়ে চলতে শুরু করেন। প্রত্যাখ্যাত হওয়ার ভয় তরুণদের নারী সম্পর্কে জড়ানো থেকে দূরে রাখতে জোরালো ভূমিকা রাখে বলে মনে করেন মাতসুই। তিনি বলেন, ‘আমার মতো অনেক পুরুষ রয়েছে, যারা নারীদের ব্যাপারে সংকোচ বোধ করেন। কারণ প্রত্যাখ্যাত হওয়ার চেয়ে বরং অন্য কিছুতে মনোযোগ দেয়াই ভালো।’ সাম্প্রতিক গবেষণা বলছে, ১৮ থেকে ৩৪ বছরের তরুণদের ৪৫ শতাংশ কখনোই কোন শারীরিক সম্পর্কে জড়াননি। অন্যদিকে, ৬৪ শতাংশ বলছে, তারা প্রেম জাতীয় কোন সম্পর্কে এখনও জড়াননি। পক্ষান্তরে, এ বিষয়ে জাপানের মেয়েরা মনে করেন; সম্পর্ক গড়ে তোলার ব্যাপারে ছেলেদেরই এগিয়ে আসতে হয় যা মোটেও সহজ কাজ নয় বলে মানছেন তারা। এ বিষয়ে ৪৫ বছরের নারী রোকুডেনাশিকো বলেন, ‘একটি সম্পর্ক গড়ে তোলার জন্য একটি ছেলেকে প্রথমে একটি মেয়েকে ডেটিংয়ে নিয়ে যাওয়ার প্রস্তাব দিতে হয়। এতসব ব্যাপার অনেক তরুণ করতে চায় না।’ তিনি অনেকের মতো মনে করেন, ছেলেরা বরং ইন্টারনেটে পর্নো দেখে যৌন তৃপ্তি নেয়। এ সময় তার পাশে বসা দুজন তরুণী যারা তাদের ‘ছেলেবন্ধু’র সঙ্গে ‘ব্যক্তিগত’ সম্পর্কে যুক্ত; এমন তথ্য শুনে বেশ আশ্চর্য হন রোকুডেনাশিকো। অন্যদিকে, ২৪ বছর বয়সী হিসাব কর্মকর্তা আনা মনে করেন, যৌনতার চেয়েও তার কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ ভালো খাবারদাবার আর ঘুম। তিনি বেশ স্পষ্ট করেই জানালেন, ‘যৌনতা এমন কিছু, যার আসলে আমার দরকার বা চাহিদা নেই।’ সূত্র: বিবিসি