চলতি বছর সাড়ে ৭ লাখ কর্মী বিদেশে পাঠাতে চায় সরকার

0
296

চলতি বছর বিভিন্ন দেশে সাড়ে ৭ লাখ কর্মী পাঠাতে চায় প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়। এছাড়া নির্ধারিত লক্ষ্যমাত্রার চেয়েও আরও বেশি কর্মী বিদেশে পাঠানোর আশা করছে মন্ত্রণালয়।

রবিবার নতুন বছরে সরকারের শ্রমবাজার পরিকল্পনা নিয়ে অভিবাসন বিষয়ক সাংবাদিকদের সংগঠন রিপোর্টার্স ফর বাংলাদেশি মাইগ্রেন্টস (আরবিএম) আয়োজনে মিট দ্য প্রেস অনুষ্ঠানে এ তথ্য জানান মন্ত্রী ইমরান আহমদ।

মন্ত্রী বলেন, ‘এই বছর আমাদের টার্গেট সাড়ে ৭ লাখ কর্মীর বিদেশে কর্মসংস্থান করা। লক্ষ্যমাত্রা এটা হলেও আমরা বিশ্বাস করি এই লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে বেশি হবে।’

সদ্য শেষ হওয়া বছরে ৭ লাখ ১ হাজার বাংলাদেশি কর্মীর বৈদেশিক কর্মসংস্থান হয়েছিল, যা মন্ত্রণালয়ের কর্মী প্রেরণের লক্ষ্যমাত্রার (৬.৫০ লাখ) চেয়ে প্রায় ৫১ হাজার বেশি।

প্রবাসী কল্যাণমন্ত্রী বলেন, ‘বিদেশগামীর সংখ্যা কিছু কমেছে। আমাদের চাহিদা হচ্ছে দক্ষ শ্রমিক, দক্ষ শ্রমিক না নিলে ফেল করবে। টার্গেট হলো দক্ষ শ্রমিক। আমরা দক্ষ শ্রমিক লাখে লাখে কথা বলি কিন্তু দক্ষ হাজারে হাজারে নিয়ে যাওয়াই আমাদের লক্ষ্য।’

মন্ত্রণালয়ের তথ্য বলছে, ২০১৯ সালে জেলাভিত্তিক সবচেয়ে বেশি বিদেশ গমন করেছে কুমিল্লা, ব্রাক্ষণবাড়িয়া, চট্টগ্রাম, টাঙ্গাইল ও ঢাকা এলাকার লোকজন। আর দেশের হিসেবে সর্বোচ্চ সংখ্যক কর্মী গমন করেছে সৌদি আরবে।

মিট দ্য প্রেসে সচিব মো. সেলিম রেজা জানান, ২০১৯ সালে মোট কর্মসংস্থানের মধ্যে দক্ষকর্মী ছিল ৪৪ শতাংশ, আধা দক্ষ ছিল ২০ শতাংশ। আর নারী কর্মীর সংখ্যা ছিল ১.১১ লাখ।

চলতি বছরে নতুন বাজার নিয়ে পরিকল্পনার কথা জানাতে গিয়ে মন্ত্রী ইমরান আহমেদ বলেন, ‘কম্বোডিয়া, সিশেলস, হারজেগোবিনা, রোমানিয়া, হাঙ্গেরি, পোল্যান্ড, চীনে বাংলাদেশ থেকে কর্মী প্রেরণ শুরু করা হয়েছে। এ বছর আরও বেশি পরিমাণে নতুন নতুন দেশে কর্মী প্রেরণে পরিকল্পনা করেছে সরকার। আশা করি ৫ থেকে ৬টি নতুন দেশে শ্রমবাজার খুলতে পারব।’